ডিপ ওয়েব নিয়ে বিভ্রান্তী

ডীপ ওয়েব সম্পর্কে বাংলা টেক ব্লগ গুলোতে অনেক আর্টিকেল আছে। কিন্তু প্রতিটা আর্টিকেলেই কিছু ভুল তথ্য চোখে পড়লো। তাই ভাবলাম লিখে ফেলি। কিছু তথ্য যেগুলো গুলো, সেগুলো উল্লেখ করে সঠিকটা দেয়ার চেষ্টা করলাম।

ডিপ ওয়েব
ডিপ ওয়েব

– একটি জরিপে দেখা গেছে দৃশ্যমান ওয়েবে যে পরিমাণ ডাটা সংরক্ষিত আছে তারচেয়ে ৫০০গুণ বেশি পরিমাণ ডাটা সংরক্ষিত আছে অদৃশ্যওয়েবে। 
-> এটা ভুল, কারন ডিপ নেটওয়ার্ক গুলো আসলে বেশিরভাগই ব্যাক্তিগত উদ্যোগে তৈরী। এগুলো বেশিরভাগই হোম সার্ভারে তৈরী। ফলে ডাটাস্পেস তুলনামূলক ভাবে কম। একমাত্র টর ছাড়া কেউ ডীপ ওয়েব ডাটাসেন্টার দেয় না। দিলেও সেটার মূ্ল্য এতো বেশি যে সবাই নেয় না। ইনডেক্স না হওয়া ডাটা আর সংরক্ষিত ডাটার মধ্যে পার্থক্য আছে ! 

– কিন্তু সাইটের এডমিন পেইজ ইনডেক্স করার অনুমতি না দিলে গুগল সেটা খুঁজে বের করতে পারবে না।

-> এটাও ভুল। কারন  রোবট টেক্সট ফাইলে যদি নো-ফলো দিয়েও রাখা হয়, সেটা গুগল এর ওপর ডিপেন্ড করবে যে সেটা মানবে কি মানবে না। এটাকে বলা হয় বট সার্চ ইনডেক্স অনার। বট যদি সেটা না মানে, তাহলে গুগল এর আইপি ব্লক না করলে বট সেটা ইনডেক্স করতেও পারে।

– ডার্ক ওয়েবের আরেকটি বিশেষত্ব হল এরা ওর্য়াল্ড ওয়াইড ওয়েবের সাইটগুলোর মত টপ লেভেল ডোমেইন (যেমন .com) ব্যবহার না করে “Pseudo Top Level Domain” ব্যবহার করে যা কিনা মূল ওর্য়াল্ড ওয়াইড ওয়েবে না থেকে দ্বিতীয় আরেকটি নেটওর্য়াকের অধীনে থাকে।

-> টপ লেভেল ডোমেইনেও অনেক ডীপ ওয়েব সাইট আছে। কিন্তু সেগুলোতে ঢোকার জন্য তাদের রাউটার এর সাথে কানেক্টেড হতে হবে নয়তো নিজের আইপি সেই সার্ভারে হোয়াইট লিষ্ট করতে হবে। 

-ডার্ক ওয়েবের মুল লক্ষই হল অপরাধের একটি অভয়ারণ্য গড়ে তোলা।

-> এখানেও ভুল আছে। ডীপ ওয়েব এর জন্ম হয়েছিলো সিকিউরিটি এজেন্সীর নজরদারী থেকে বাঁচার জন্য। প্রাথমিক সময়ে সিকিউরিটি এজেন্সী গুলো একটু বেলাইনে চলে গিয়েছিলো। তাদের নজরদারীর পরিমান এতো বেশী বেড়ে গিয়েছিলো যে তারা বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ন ব্যাক্তির ব্যাক্তিগত তথ্য ব্যবহার করে অনেক তথ্য হাতিয়ে নিয়েছিল। যদিও সেসব নিয়ে পরে অনেক আলোচনা সমালোচনা হয়েছে। তাদের হাত থেকে বাঁচার জন্যই মূলত ডীপ ওয়েবের আইডীয়া জন্ম নেয়। তবে টর জন্ম নিয়েছিলো ঠিক উলটো ভাবে। আমেরিকান নেভীর ইন্টার্নাল কমিউনিকেশন নিরাপদ করার জন্যই প্রথম অনিয়ন রাউটার ডিজাইন করা হয়। 


– সেখানে আপনি আপনার সাধারণ ব্রাউজার দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না।

-> সাধারন ব্রাউজার দিয়ে প্রবেশ করা যায়। কিছু ওয়েবসাইট আছে যারা টর এর প্রক্সি ব্যবহার করে তাদের রাউটার এর মাধ্যমে নরমাল ব্রাউজার দিয়ে অনিয়ন নেটওয়ার্কে প্রবেশ করার সুযোগ দেয়। 

– এর উত্তর হল ডীপ ওয়েবের নেটওয়ার্ক এতই গভীর যে FBI, CIA এরা কিছুই করতে পারে না । 

-> এটাও ভুল, সাধারন মানূষ কল্পনাও করতে পারবে না এরা ডিপ কভার অপারেশন কিভাবে চালায়। ২০১১ তে একবার টর এর বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছিলো যে টর আসলে সি আই এ’র একটা স্লিপার নেটওয়ার্ক। এটা তৈরী করা হয়েছিলো যাতে অপরাধীরা এটাকে নিরাপদ মনে করে ইচ্ছা মতো নিজেদের প্রকাশ করতে থাকে এবং সরকার যাতে তাদের ধরতে পারে। এটা সত্যি কিনা সে ব্যাপারে কোন তথ্য নেই, তবে সি আই এ নিজেরাই যে এমন গোপন নেটওয়ার্ক তৈরী করে পাবলিকের কাছে সার্ভিস দিচ্ছে না, তার কোন গ্যারান্টি নাই !

ডীপ ওয়েব মানেই যে সেটার জন্য আলাদা সফটওয়্যার লাগবে এমন নয়। সেটা সর্বসাধারন এর দৃষ্টির আড়ালে, সেটাই ডীপ ওয়েব।

2 Comments

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.